পৈশাচিক কান্ড বনগাঁয়, আত্মঘাতী কিশোরীকে দড়ি থেকে নামিয়ে মারধর, অভিযোগ তৃণমূল কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে

ছবি:( তৃণমূল কাউন্সিলর মৌসুমী চক্রবর্তী দত্ত)
আমাদের ভারত, উত্তর ২৪ পরগণা, ৭ ডিসেম্বর: আত্মঘাতী হওয়ার পর দড়ি থেকে নামিয়ে মৃত যুবতীকে মারধর করার অভিযোগ উঠল বনগাঁ পৌরসভার ১২ নম্বর ওয়ার্ডের প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলর মৌসুমী চক্রবর্তী দত্ত ও তার দলবলের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ থানার দীনবন্ধু নগর এলাকার। মৃতের নাম রিয়া দাস। সে নবম শ্রেণির ছাত্রী।

অভিযোগ, রিয়ার প্রাক্তন প্রেমিকের মৃত্যু হওয়ায় রিয়ার বাড়ি হামলা চালায় তৃণমূল কাউন্সিলর ও তার দলবল। রিয়ার সামনে তার মাকে মারধর করতে যায়। রিয়াকে ঘর থেকে টেনে হিঁচড়ে বাইরে এনে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। রিয়া লজ্জায় ঘরের দরজা বন্ধ করে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হয়। তাতেও রেহায় পাইনি রিয়া। দড়ি থেকে তার দেহ নামিয়ে রিয়াকে মারধর করতে যাওয়া হয় বলে অভিযোগ। এত বড় পৈশাচিক ঘটনায় কোনও অভিযোগ করতে দেয়নি শাসক দল। যেহেতু শাসক দলের কাউন্সিলারের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ সেহেতু পুলিশ কোনও পদক্ষেপ নেয়নি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, তৃণমূল কাউন্সিলর মৌসুমী চক্রবর্তী দত্তের ঘনিষ্ট আত্মীয় সেন্টু দত্ত। বৃহস্পতিবার নেশা করে বাড়ি ঢোকে সেন্টু দত্ত। পরিবারের লোকজন প্রতিবাদ করে। সেই দিনই বাড়িতে একটা চিঠি লিখে বাড়ি থেকে বের হয় সেন্টু। সেন্টুর খোঁজ নিতে রিয়ার বাড়ি যায় সেন্টুর পরিবার। সেখানে গিয়েও তাদেরকে হুমকি দিয়ে আসে সেন্টুর পরিবার। সম্প্রতি তার প্রেমিকার সঙ্গেও এই নেশা করার কারণে সম্পর্ক নষ্ট হয় বলে প্রেমিকার পরিবারের দাবি। সোমবার সকালে বাড়ির পাশে সেন্টুর মৃতদেহ দেখে তৃণমূল কাউন্সিলর মৌসুমী চক্রবর্তী দত্ত ও তার স্বামী দলবল নিয়ে গিয়ে রিয়ার বাড়ি হামলা চালায়। প্রথমে রিয়ার মাকে মারধর করে করতে এগিয়ে যায়, পরে রিয়াকে ঘর থেকে টেনে হিঁচড়ে বাইরে বের করে মারধর করে বলে অভিযোগ। রিয়া লজ্জায় ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হয় রিয়া। এরপর দড়ি থেকে রিয়ার মৃতদেহ নামিয়ে ফের তাকে মারধর করে ওই তৃণমূলের কাউন্সিলর সহ তার অনুগামীরা।

স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন, বনগাঁ পৌরসভার ১২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মৌসুমী চক্রবর্তী দত্ত এলাকার ত্রাস বললে ভুল কিছু হবে না। ওই ওয়ার্ডের বাড়ি বিক্রির কাটমানি থেকে শালিসভায় বসে অন্যের গয়না কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে। শাসক দলের কাউন্সিলর বলে পুলিশকে কাজে লাগিয়ে এই সব অন্যায় করে যাচ্ছে বলে অভিযোগ।

প্রতিবেশী স্বপ্না মজুমদার বলেন, বৃহস্পতিবার থেকে ওই অসহায় পরিবারের উপর অত্যাচার চালাচ্ছে তৃণমূল কাউন্সিলর মৌসুমীর দলবল। আজ সকালে মৌসুমী দাঁড়িয়ে থেকে বাড়িতে হামলা চালায়। রিয়া ভয়ে লজ্জায় ঘরে ঢুকে আত্মঘাতী হয়। এরপর তাকে দড়ি থেকে নামিয়ে মারধর করে মৌসুমী। যদিও সব অভিযোগ অস্বীকার করেন তৃণমূল কাউন্সিলর মৌসুমী চক্রবর্তীর দত্ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *