প্রত্যাশা মতো আজ তুরুপের তাস খেললেন না শুভেন্দু

আমাদের ভারত, পূর্ব মেদিনীপুর, ২৯ নভেম্বর : মন্ত্রিত্ব ছাড়ার পর প্রথম জনসভাতে তাঁর তুরুপের তাস খেললে না শুভেন্দু অধিকারী। আজ মহিষাদলে তাঁর বক্তব্য শুনতে হাজির হয়েছিলেন হাজার হাজার মানুষ। সবাই আশা করেছিলেন এই মঞ্চ থেকে শুভেন্দু অধিকারী নিজের অবস্থান পরিস্কার করবেন। কিন্তু তিনি মঞ্চ থেকে কোনো রাজনৈতিক কথাই বলেননি। সবার প্রত্যাশায় জল ঢলে মঞ্চ ছেড়েছেন শুভেন্দু অধিকারী।
অন্যদিকে শুভেন্দুর সভা পন্ড করতে জেলায় তিনটি পদযাত্রা ও সভার আয়োজন করে তৃণমূল।
কিন্তু তাতে কোনও প্রভাব পড়েনি শুভেন্দুর সভায় বলে রাজনৈতিক মহলের ধারণা।

আজকে মহিষাদলের ছোলাবাড়ি ময়দানে স্বাধীনতা সংগ্রামী রঞ্জিত বয়ালের স্মরণসভার আয়োজন করেছিল জনকল্যাণ ট্রাস্ট। যার মূল বক্তা ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। সবাই আশা করেছিলেন সেই সভা মঞ্চ থেকে তিনি নিজের অবস্থান পরিষ্কার করবেন। কিন্তু সেই আশায় জল ঢেলে তিনি মঞ্চ থেকে স্বাধীনতা সংগ্রামীর প্রতি শ্রদ্ধা জানানো ছাড়া কোনও রাজনৈতিক বক্তব্যই রাখেননি। শুভেন্দু অধিকারী সম্প্রতি একটি সভায় বলেছিলেন, কি করতে হবে সব আমার মাথায় আছে যথা সময়ে বলব। কিন্তু আজকেও তিনি কিছু না বলে সবাইকে ধোঁয়াশায় রেখে মঞ্চ ছেড়েছেন। তিনি মঞ্চ থেকে একটাই কথা বলেছেন, সংবিধান অনুযায়ী মানুষই সবার ওপরে, সেই মানুষের সেবা করার জন্য তিনি দায়বদ্ধ।

শুভেন্দু অধিকারীর সভামঞ্চে এদিন কোনও বিধায়ককে দেখা যায়নি। তবে বেশ কয়েকজন নেতা-নেত্রীকে দেখা গেছে, যারা তৃণমূলের নতুন কমিটিতে দায়িত্ব পেয়েছেন।
শুভেন্দুর এই সভাতে লোক আসা ঠেকাতে হলদিয়া, কাঁথি ও ভগবানপুরে তিনটি পদযাত্রা ও সভার আয়োজন করে তৃণমূল কংগ্রেস। হলদিয়ায় যুব তৃণমূলের ব্যানারে সুজিত বসু ও রাজীব ব্যানার্জির নেতৃত্বে পদযাত্রা ও সভা হয়। ব্রাত্য বসু ও নির্বেদ রায় কাঁথিতে সভা করেন। ভগবানপুরেও একটি সভা হয়। তবে সব কিছুকে ছাপিয়ে দূর-দূরান্ত থেকে আসা দাদার অনুগামীদের ভিড়ে মহিষাদলের সভা পরিপূর্ণ হয়ে যায়।
আজকের সভা থেকে শুভেন্দু যেমন দল বা কারোর বিরুদ্ধে কোন কথা বলেননি। তেমনি তৃণমূলের কোন কোন সভা থেকেই কেউ শুভেন্দুর বিরুদ্ধে কোনো কথা বলেনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *