আজ নন্দীগ্রামে ঐতিহাসিক সভা হবে, মেচেদায় চায় পে চর্চায় বললেন দিলীপ ঘোষ

আমাদের ভারত, পূর্বমেদিনীপুর, ৮ জানুয়ারি : আজ সকালে মেচেদায় প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে চায় পে চর্চায় আসেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। গতকাল রাতেই তিনি নন্দীগ্রামের সভায় যাওয়ার জন্য মেচেদা আসেন। আজ ভোরে গেস্ট হাউস থেকে বেরিয়ে প্রথমে তিনি হেঁটে ইসকন মন্দিরে যান। সেখান থেকে বেরিয়ে মেচেদার শান্তপুরে পাচঁ মন্দিরে যান। সেখানে চায় পে চর্চায় কর্মী ও সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথাবার্তা বলেন।

মেচেদা গেস্টহাউস থেকে বেরিয়ে মর্নিং ওয়াক করতে করতে মেদিনীপুরের সাংসদ তথা বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ মেচেদা পি ডাব্লিউ ডি মাঠে আরএসএস এর শাখায় গিয়ে প্রার্থনায় যোগদান করেন। এরপর মেচেদা ইসকন মন্দিরে গিয়ে আরতি করতে দেখা যায় দিলীপ ঘোষকে। পরে মেচেদায় প্রায় দুই কিলোমিটার হাঁটেন তিনি। এরপর মেছেদা শান্তিপুর এলাকায় চা চক্রে যোগ দেন দিলিপ ঘোষ। সেখানে বলেন যে আমরা গ্রাম বাংলার মানুষ। সকালে হাঁটা উচিত। করোনার সময় আমরা বা আমি বিশেষ করে করোনাকে ভয় পাইনি। টাটকা সবজি, শাক, গাছের ফলপাকড় খাই, আমাদের শরীরে কিছু হবে না। যারা বেশি ভয় করেছে করোনাতে তারাই মরেছে। নতুন বছরে আমরা সরকারে আসছি। তৃণমূলে আর কেউ থাকতে চাইছে না। এজন্যই যারা ভালো সবাই বিজেপিতে চলে আসছে। আমাদের পরিবার বড় পরিবার সকলকে স্বাগতম।

এর পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, এক সময় আমি যখন নন্দীগ্রামে যেতাম তখন আমাকে নন্দীগ্রাম যাওয়ার রাস্তায় আটকানো হত। অনেকবার নন্দীগ্রামে পৌঁছতে পারিনি। তখন যারা আটকাতো তারাই আজ নন্দীগ্রামে ডাকছে। আজকের নন্দীগ্রামের সভায় তারাই বিজেপিতে জয়েন করবে। আজ নন্দীগ্রামে এক ঐতিহাসিক সভা হবে। তিনি আরো বলেন, এই তৃণমূল নামক কোম্পানি উঠে যাবে। ওই দলে পিসি ভাইপো ছাড়া আর কেউ থাকবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *