মা দুর্গার শপথ, কৃষকদের পরিস্থিতির পরিবর্তন আনবে বিজেপি: নাড্ডা

শ্রীরূপা চক্রবর্তী, আমাদের ভারত, ৯ জানুয়ারি: মা দুর্গার নামে শপথ করে কাটোয়ার জগদানন্দপুরে কৃষক সুরক্ষা অভিযানের সূচনা করে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। তিনি বললেন, মা দুর্গার শপথ কৃষকদের পরিস্থিতির পরিবর্তন আনবেই বিজেপি। আজকের সভায় বিজেপি সভাপতির গলায় মা দুর্গা ও মা কালীর নামে স্লোগান শোনা গেছে। একই সঙ্গে তিনি বলেছেন, আজকের সভায় মানুষের উপস্থিতি বলে দিচ্ছে পশ্চিমবঙ্গের মানুষ পরিবর্তনের জন্য একেবারে মনস্থির করে ফেলেছে। সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে রাজ্যের শাসকদলের যেমন তুলোধুনো করেছেন নাড্ডা তেমনি মোদী নেতৃত্বাধীন সরকার কৃষকদের জন্য কি কি করেছে তার সংক্ষিপ্ত পরিসংখ্যানও তুলে ধরেছেন।

মোদীর সরকারের নয়া কৃষি আইনের বিরোধিতায় দিল্লি সীমান্তে আন্দোলন চলছে। বহুবার বৈঠকের পরেও সমাধান সূত্র এখনো বেরোয়নি। বিজেপি বার বার বলেছে এই কৃষি আইন বিরোধী আন্দোলন মাত্র কয়েকটি রাজ্যের মধ্যে সীমাবদ্ধ। কিন্তু আন্দোলনকারিরা আইন প্রত্যাহারের দাবিতে অনড়। এই পরিস্থিতিতে বিজেপির তরফে নয়া কৃষি আইনের পক্ষে জনমত তৈরি করতে দেশব্যাপী বিরাট কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। সেই কর্মসূচির আজ কটোয়ার জগদানন্দপুর থেকে সূচনা করলেন বিজেপি সভাপতি। বর্ধমানকে পশ্চিমবঙ্গের শস্য ভান্ডার বলা হয়। আর ঐ এলাকার তৃণমূল সাংসদ সুনীল মন্ডল কিছু দিন আগেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। ফলে সবমিলিয়ে কাটোয়ায় এই কর্মসূচি সূচনার এক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

এদিন সভায় বক্তব্য রাখতে উঠেই নাড্ডা বলেন, এই সভায় ভিড় স্পষ্ট করে দিয়েছে যে রাজ্যের মানুষ পরিবর্তনের জন্য মনস্থির করে ফেলেছে। তিনি বলেন কৃষক সুরক্ষা অভিযান চলবে দেশের ৪০ হাজার গ্রামে। কাটোয়ার মতো সব গ্রামের কৃষকদের কাছ থেকে বিজেপি কর্মকর্তারা একমুঠো চাল দান হিসেবে নেবেন ও নয়া কৃষি আইন সম্পর্কে বুঝিয়ে জনমত গঠন করবেন। ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত এই অভিযান চলবে। এরপর ২৪-৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত কৃষক ভোজ অভিযান চলবে। যেখানে কৃষকদের সাথে বসে বিজেপি নেতারা খাবেন কৃষি আইনের সুবিধা সম্পর্কে অবহিত করবেন। কৃষকদের বিরুদ্ধে অন্যায়ের প্রতিবাদে কৃষকদের সংগঠিত করবেন।

নাড্ডা দাবি করেন, মোদী সরকার কৃষক দরদী সরকার। সেই জন্যই এই সরকার কৃষি বাজেটে বরাদ্দ ৬ গুণ বাড়িয়েছে। বহুদিন ফাইলের ভাঁজে আটকে থাকা স্বামীনাথন কমিটির রিপোর্টকে বাস্তবায়ন করে এম এস পি প্রায় দেড় গুণ বাড়িয়েছে।

তৃণমূলের বিরুদ্ধে আবারো একবার রাজ্যের কৃষকদের বঞ্চনার অভিযোগে সোচ্চার হন বিজেপি সভাপতি। তিনি বলেন, এতদিনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রী কিষান সম্মান নিধি যোজনা রাজ্যে চালু করার জন্য চিঠি লিখেছেন। এতদিন তাঁর জন্য রাজ্যের ৭০ লক্ষ পরিবার এই প্রকল্পের সুবিধা থেকে বঞ্চিত। তিনি বলেন, এতদিন পরে আর এই যোজনা তৃণমূল সরকারের চালু করে লাভ নেই। এবার রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় এসেই এই প্রকল্প চালু করবে।

নয়া কৃষি আইনের সপক্ষে তিনি বলেন, এই আইন কৃষকদের স্বাধীনতা এনে দেবে। এতে ফসলের সঠিক দাম পাবে কৃষকরা। সরাসরি ফসল বিক্রি করার সুযোগ থাকবে কৃষকদের হাতে।

এদিন আবারও তৃনমূলকে কাটমানির দল, চাল চোর, ত্রিপল চোরের দল বলে বিদ্রুপ করেন নাড্ডা। বলেন, তৃণমূলের সরকার মোদী সরকারের সব প্রকল্পকে আলাদা নামকরণ করে চালাচ্ছে।
এদিন সভার শেষে তিনি স্লোগান তোলেন জয় মা দুর্গা ,জয় মা কালী, শেষ করো এই অত্যচার। তিনি দাবি করেন পশ্চিমবঙ্গেও কৃষকদের সাথে নিয়েই সরকার গড়বে বিজেপি।

আজ অন্ডাল বিমানবন্দরে নেমে সেখান থেকে হেলিকপ্টারে তিনি কাটোয়া পৌঁছন। সেখানে গিয়ে সবার আগে রাধা গোবিন্দ মন্দিরে পুজো দেন। এরপর মুস্থুলীতে সভা করেন। আজ বর্ধমান শহরে তার রোড শো-এর কর্মসূচিও রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *