তৃণমূল নেতারা বুঝেসুঝে কথা বলুন, নির্বাচনের পর বলবেন দাদা বাঁচাও: শুভেন্দু

আমাদের ভারত, মেদিনীপুর, ২৭ ডিসেম্বর: দাঁতনের দুটি মণ্ডল কমিটির ডাকে আজ বিজেপির একটি জনসভার আয়োজন করা হয়। সাড়ে তিন কিলোমিটার পদযাত্রা করার পর  সেখানে জনসভায় বক্তব্য রাখেন শুভেন্দু অধিকারী। সভায় রাজ্য সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন তিনি।তিনি বলেন, কেন্দ্রের প্রকল্প গুলির নাম পাল্টে রাজ্য সরকার অন্য নাম দিয়েছে। তাকে বিশ্বাসঘাতক বলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মেদিনীপুরে বিশ্বাসঘাতক জন্মায় না, এখানে মাতঙ্গিনী হাজরা, বিদ্যাসাগর, ক্ষুদিরাম বসুর জন্ম।

তিনি বলেন, আগামী বিধানসভা নির্বাচন হবে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে। রাজ্য পুলিশ থাকবে না। এইজন্য ভোট হবে নিরপেক্ষ। নির্বাচনে জিতবে বিজেপি। শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ভাইপোকে তৃণমূলের যুব সভাপতি করার জন্য ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছিল। মাঝখানে সরাসরি ভাইপোকে না এনে সৌমিত্র খাঁকে আনা হয়েছিল। কারণ ছয় মাসের মধ্যে ভাইপোকে সেই পদে বসানো হবে। শুভেন্দু বলেন, ঝাড়গ্রামের  দিলীপ ঘোষ আর মেদিনীপুরের আমি হাত মিলিয়েছি। বিজেপি আগামী বিধানসভায় ক্ষমতায় আসবে। উপড়ে ফেলা হবে তৃণমূলকে। এরপর তিনি সিভিক ভলান্টিয়ারদের সামান্য বেতন এবং সবক্ষেত্রে চুক্তি ভিত্তিক চাকরি দেওয়ার সমালোচনা করেন। বিভিন্ন চাকরিতে পরীক্ষা না করে রাজ্যের দুই কোটি বেকার তৈরি করার অভিযোগ করেন।

তিনি বলেন, ভোট এলেই শংকরপুর বন্দর করার কথা মনে পড়ে। ২০১৫ সাল থেকে সেই ঘোষণা শুনে আসছি। তিনি আমফানের টাকা একশ দিনের কাজের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ করেন। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার নাম পাল্টে কুড়ি হাজার টাকা করে নেওয়ার অভিযোগ করেন। শুভেন্দু বলেন, আমি মাঠে নেমে গেছি। মোদী সরকার গড়তে হবে এ রাজ্যে। বাঁচাতে হবে শিল্প। ফলে সকল বেকারের চাকরি হবে। তিনি বলেন, তৃণমূল নেতারা বুঝেসুঝে কথা বলুন। কারণ নির্বাচনের পর বলবেন দাদা বাঁচাও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *