কলকাতা, দিল্লি, মুম্বাই ছেড়ে কেন স্পেনে গিয়ে শিল্পের ঘোষণা সৌরভের? মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যের মানুষকে বোকা বানাচ্ছেন, কটাক্ষ সুকান্তর

আমাদের ভারত, ১৬ সেপ্টেম্বর: স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদের মঞ্চ থেকে সেদেশের ব্যবসায়ী তথা শিল্পপতিদের এরাজ্যে বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বাংলায় শিল্প বান্ধব পরিবেশ রয়েছে বলে দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার আহ্বান এই রাজ্যে সবই আছে, ওদেশের বিনিয়োগকারীরা যেনো পরখ করে দেখে যেতে পারেন। একই সঙ্গে মাদ্রিদের সম্মেলন মঞ্চ থেকে রাজ্যে খুব শীঘ্রই শিল্প কারখানা তৈরি করতে চলেছেন বলে ঘোষণা করেছেন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেট অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি। এই বিষয়েই শনিবার বর্ধমানে এসে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তোপ দেগেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার।

বর্ধমানের সর্বমঙ্গলা বাড়িতে পুজো দিয়ে বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করেন সুকান্ত। সেখানে সাংবাদিকদের সামনে স্পেনে মুখ্যমন্ত্রীর সফর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “স্পেনে গিয়ে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে দিয়ে শিল্পের ঘোষণা করার কি প্রয়োজন আমি বুঝতে পারছি না। তিনি তো কলকাতা, দিল্লি, কিংবা মুম্বাইতে গিয়ে শিল্পের কথা ঘোষণা করতে পারতেন। আসলে মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যের মানুষকে বোকা বানাচ্ছেন।” সুকান্ত আরো বলেন, “আমি আশা করেছিলাম স্পেনের কোনো শিল্পপতি বলবেন তিনি শিল্প কারখানা কিংবা অ্যাকাডেমি করবেন। আসলে মুখ্যমন্ত্রী এভাবে রাজ্যের মানুষকে বোকা বানাচ্ছেন। সৌরভ তো আর শিল্পপতি নন। তিনি একজন ক্রিকেটার। হয়তো এখন শিল্পপতিতে রূপান্তরিত হতে শুরু করেছেন।”

রাজ্যের কর্মসংস্থানের প্রসঙ্গ তুলে ধরে সুকান্ত বলেন, এটা তো সবাই জানেন এখানে কর্মসংস্থান নেই। সেই কারণে মানুষরা পরিযায়ী শ্রমিক হয়ে অন্য রাজ্যে যেতে বাধ্য হচ্ছেন। সবচেয়ে বড় কথা, স্পেনে গিয়ে সৌরভ কেন শিল্পের কথা ঘোষণা করবেন? সেখানে তো স্পেনের শিল্পপতিরা শিল্পের কথা ঘোষণা করবেন। বাংলার তুলনায় বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলি কতখানি এগিয়ে তার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে সুকান্ত বলেন, বাংলার মানুষের কাছে ভুল বার্তা রয়েছে যে লক্ষ্মীর ভান্ডার প্রকল্প প্রথম পশ্চিমবঙ্গ সরকার শুরু করেছে। কিন্তু অনেক আগেই মধ্যপ্রদেশ সরকার “লাডলি বেহনা” প্রকল্প শুরু করেছে। সে প্রকল্পে প্রত্যেক মহিলাকে ১২৫০ টাকা করে দেওয়া হয়। হরিয়ানাতে বার্ধক্য ভাতা হিসেবে আড়াই হাজার টাকা দেওয়া হয়। বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলো পশ্চিমবঙ্গের থেকে অনেক বেশি এগিয়ে আছে।”

অন্যদিকে সৌরভের কারখানা গড়া নিয়ে বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ বলেন, ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করি ওর এই উদ্যোগ যেন সফল হয়। উনি বাংলার উন্নয়নের স্বার্থে স্পেনে গিয়েছেন। তবে রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে পড়ে সৌরভ যাতে বিপথে না যান সে ব্যাপারে সতর্ক করেন দিলীপ ঘোষ। তিনি জানান, উনি যেনো রাজনীতির চক্করে না পড়েন। উনি যেন ঢপবাজি রাজনীতির শিকার না হন। রাজ্য সরকারকে পরোক্ষে নিশানা করে দিলীপ ঘোষ বলেন, রাজ্যে অনেক জমি পড়ে রয়েছে। সেগুলিকে দেওয়ার ব্যবস্থা করতে পারছে না সরকার। যে কারণে কেন্দ্রের অনেক প্রকল্প আটকে রয়েছে। শিল্পায়ন করতে আদৌ সরকার কতটা উদ্যোগী সেই নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করতে দেখা গেছে দিলীপ ঘোষকেও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *