টুইটার উইকিপিডিয়ার পর এবার হু-য়ের ম্যাপেও ভারতের থেকে পৃথক দেখানো হল জম্মু-কাশ্মীরকে

আমাদের ভারত,১০ জানুয়ারি:টুইটার উইকিপিডিয়া পর এবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা হু-য়ের বিরুদ্ধেও ভারতের ফুল ম্যাপ প্রকাশ করার অভিযো উঠল। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা হুয়ের ম্যাপে জম্মু কাশ্মীর লাদাখকে ভারতের মূল ভূখণ্ডের থেকে আলাদা করতে অন্য রং ব্যবহার করা হয়েছে। হুয়ের প্রকাশিত এই ম্যাপ নিয়ে উঠেছে বিতর্কের ঝড়। আকসাই চিনের পুরো অংশকেও ভিন্ন রংয়ের দেখানো হয়েছে। ওই ভুল ম্যাপের পিছনের চিনের হাত থাকতে পারে বলে মত অনেকের।

কোন দেশে করোনা সংক্রমণের হার কেমন, সেই চিত্র তুলে ধরতে হু-য়ের ড্যাশবোর্ডে ভারতের যে ম্যাপ রয়েছে,তাতে ভারতের মূল ভূখণ্ডকে নীল রংয়ের দেখানো হয়েছে। কিন্তু নবগঠিত দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু কাশ্মীর। ও লাদাখকে ধূসর বা ছাই রংয়ের দেখানো হয়েছে। অন্যদিকে আকসাই চিনের দেখানো হয়েছে ছাই রঙের ওপর নীল স্ট্রাইপে। তবে হু-য়ের দাবি রাষ্ট্রপুঞ্জের মানচিত্রে নির্দেশিকা রয়েছে সেটাই তারা অনুসরণ করেছে। এই ঘটনায় ব্যাপক ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বিদেশে থাকা ভারতীয় নাগরিকদের একাধিক সংগঠন।

বিষয়টি প্রথমে খেয়াল করেন লন্ডনে কর্মরত এক তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ। তিনি ঘটনাটি হোয়াটসঅ্যাপের একাধিক গ্রুপে শেয়ার করেন। তার বক্তব্য এই ঘটনা দেখার পর আমি মর্মাহত। হু-য়ের মত একটি দায়িত্বশীল সংগঠন কিভাবে এই কাজ করতে পারে?এর পিছনে চিনের মদত থাকতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তিনি। তিনি বলেছেন চিন পাকিস্তান বিরাট অংকের অনুদান দেয় হুকে। চিন চায় সীমান্ত সমস্যা সময় জিয়ে থাকুক। আর হুয়ের উপর চিনের বড় প্রভাব আছেন।

এর আগেও গত বছর নভেম্বর মাসে একই ভুল করেছিলে টুইটার। লাদাখের বিস্তৃত অঞ্চলকে চিনের অংশ হিসেবে দেখানো হয়েছিল। তার জন্য যৌথ সংসদীয় কমিটি টুইটার কর্তৃপক্ষকে তলব করে। কমিটির তরফে ব্যাখ্যা দেওয়া ছাড়াও বিষয়টি শুধরে নিয়ে ভারতের কাছে ক্ষমা চেয়ে নেয়। উইকিপিডিয়াও প্রায় একই ধরনের ভুল করে ডিসেম্বরের গড়ায়। তারাও বিষয়টি শুধরে নেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *